| ঢাকা, বুধবার, ১৯ জুন, ২০২৪

জিরো কুপন বন্ডের অনুমতি পেয়েছে বেক্সিমকো গ্রুপ

Image
By
April 18, 2024
Image

বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো গ্রুপ সম্প্রতি ১,৫০০ কোটি টাকার জিরো কুপন বন্ড ইস্যু করার অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এক বিশেষ সভায় বাংলাদেশ সিকিউরিটি এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন এ ঘোষণাটি দেয়। অনুমোদিত জিরো কুপন বন্ডটি অরূপান্তরযোগ্য ও প্রতিটি ইউনিটের নির্ধারিত মূল্য থাকছে পঞ্চাশ হাজার টাকা।

বেক্সিমকো গ্রুপের নন-কনভার্টেবল ও রিডিমেবল এই বন্ড শেয়ারবাজারে লেনদেন করা যাবে না ও এর ডিসকাউন্ট রেট ১৫ শতাংশ। ৫ বছর পর এ বন্ডের মূল্য হবে ২,৬২৫ কোটি টাকা। বন্ডটির এরেঞ্জার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে আইএফআইসি ইনভেসমেন্ট লিমিটেড এবং ট্রাস্টি হিসেবে কাজ করবে সন্ধানী লাইফ ইন্সুরেন্স।

বন্ড থেকে প্রাপ্ত অর্থ দিয়ে বেক্সিমকো গ্রুপ শ্রীপুর টাউনশিপ লিমিটেডের সাথে যৌথ উদ্যোগে মায়ানগর আবাসন প্রকল্পে বিনিয়োগ করবে। নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের পাশে ১০০ একর জায়গা নিয়ে এই মায়ানগর আবাসন প্রকল্প গড়ে উঠছে যেখানে থাকবে ১৮ হাজার এপার্টমেন্ট। প্রকল্পটির মালিকানার ৭৫ শতাংশ বেক্সিমকো গ্রুপের এবং ২৫ শতাংশ শ্রীপুর টাউনশিপের।

১৯৭০ দশকের শুরুর দিকে বেক্সিমকো গ্রুপ তার যাত্রা শুরু করে। এটি বাংলাদেশের বৃহত্তম একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিত। বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঠিক পর পর, আহমেদ সোহেল এফ রহমান এবং সালমান এফ রহমান বেক্সিমকো গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেন। শুরুতে শুধুমাত্র আমদানি-রপ্তানিতে জড়িত থাকলেও কালের পরিক্রমায় বেক্সিমকো গ্রুপ ফার্মাসিউটিক্যালস, টেক্সটাইল, সিরামিকস, এলপিজি, খাদ্য ও পানীয়, স্যাটেলাইট, মিডিয়া, আবাসন, আর্থিক পরিষেবা এবং নবায়নযোগ্য-শক্তি খাতে বিনিয়োগ করে প্রচুর সফলতা পায়।

বেক্সিমকো লিমিটেড ১৯৮৯ সালে পুঁজিবাজারে প্রথমবারের মতন তালিকাভুক্ত হয়। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির রিজার্ভের ৭৩৮৫ কোটি টাকার উপরে রয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটি যুগের পর যুগ বাংলাদেশের সার্বিক ব্যবসা-বাণিজ্যে অবদান রেখে আসছে। প্রতিষ্ঠানটিতে বর্তমানে ৭০ হাজারের উপর মানুষ কাজ করে। গত ১০ বছরে প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ বাড়িয়েছে। এই পরিক্রমায় গাজীপুরের শ্রীপুরে একটি আবাসন প্রকল্পে বিনিয়োগের জন্য প্রতিষ্ঠানটি এই জিরো কুপন বন্ড বাজারে ছাড়বে। এই বন্ড থেকে সংগ্রহকৃত বাকি অর্থ প্রতিষ্ঠানটি ব্যাংক ঋণ পরিশোধে ব্যবহার করবে।

প্রতিষ্ঠানটির ভাইস চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান একজন সাংসদ সদস্য হওয়ার পাশাপাশি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হসিনার বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা হিসেবেও নিয়োজিত আছেন।

ধারণা করা হয় বেক্সিমকো গ্রুপের এই জিরো কুপন বন্ড বাংলাদেশের বিনিয়োগকারীদের জন্য নতুন ধারা উন্মোচন করবে যার ফলশ্রুতিতে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য ভিন্ন এক গতি পাবে। অর্থনিতিতে যোগ হবে নতুন মাত্রা।

PREVIOS POST
১,৫০০ কোটি টাকার জিরো কুপন বন্ড ছাড়ছে বেক্সিমকো গ্রুপ
NEXT POST
সফল মানুষেরা যা কখনোই করেন না

Related Posts